সোহাগ দেওয়ান,খুলনা প্রতিনিধিঃ

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত সাবেক পুলিশ সদস্যের স্ত্রীর স্বর্নালঙ্কার লুট করে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। হাসপাতালের তৃতীয় তলায় আইসিইউ’র সামনে নিয়ে সাহেরা বেগমের কাছ থেকে ওই চক্রটি সব কিছু নিয়ে নেয়। মঙ্গলবার দুপুরে দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। এঘটনার পর সন্ধ্যায় ওই পুলিশ সদস্য’র মৃত্যু হয়। স্বামীর মৃতদেহ দাফনের পর এবিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিলের কথা জানিয়েছেন মৃত সাবেক পুলিশ সদস্য মোঃ কাওছারের পরিবার।

ভুক্তভোগি পরিবারের সদস্যরা জানান, সোমবার অসুস্থ্য অবস্থায় নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার বাসিন্দা সাবেক পুলিশ কনস্টেবল মোঃ কাওছার (৫৫)কে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের বেড সংকটের কারনে জরুরী বিভাগের সামনেই বিছানা পেতে মেঝেতে রাখা হয় তাকে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে এক নারী এসে সাবেক পুলিশ কনস্টেবল মোঃ কাওছারের স্ত্রীকে বলেন আপনার স্বামীর অবস্থাতো খুবই খারাপ। আমার সাথে চলেন আইসিইউতে একটা সিটের ব্যবস্থা করে দেই। মৃত্যু শয্যায় স্বামীকে বাচাঁতে ওই নারীর কথা মতো তার সাথে সাহেরা বেগম হাসপাতালের তৃত্বীয় তলায় আইসিইউ’র সামনে যান। সেখানে যাওয়ার পর ওই চক্রের আরও দু’তিনজন সেখানে উপস্থিত হয়। অসহায় সাহেরা বেগমকে তারা বলেন, আপনার সাথে থাকা স্বর্নালঙ্কার দেখলে সরকারি সিট দিতে চাইবে না। ওগুলো খুলে হাতে রাখুন। তাদের কথা মতো নিজের সাথে থাকা স্বর্নের কানের দুল, চেইন, আংটি খুলে তিনি হাতে রাখেন। এসময় পাশে থাকা প্রতারক চক্রটি তার কাছ থেকে সব ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায়। চিৎকার চেঁচামেচি করেও ওই প্রতারক চক্রটিকে ধরতে পারেননি অসহায় ওই নারী। সব কিছু হারিয়ে তিনি দ্রুত মৃত্যু পথযাত্রী স্বামীর বিছানার কাছে চলে আসেন। ঘটনানাটি আশপাশের মানুষ ও হাসপাতালের উপস্থিত কর্মচারীদের জানালেও কোন লাভ হয়নি। এরপর দুপুর গড়িয়ে সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার স্বামীর মৃত্যু হয়। এঘটনার বিষয়ে সোনাডাঙ্গা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মমতাজুল হক বলেন, বিষয়টি খোজঁ নিয়ে দেখা হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।