মো.মোশাররফ হোসেন,পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ

পঞ্চগড়ে ৬টি ইটভাটায় লাইসেন্স না থাকা, কৃষি জমি থেকে অবৈধভাবে মাটি এনে ইট তৈরি ও কৃষি জমিতে অবৈধভাবে ভাটা করে ইট পোড়ানো সহ নানা অভিযোগে অভিযান চালিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর রংপুর পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় দুইটি ভাটা আংশিকভাবে গুঁড়িয়ে দেয়া সহ ৬ ভাটা মালিককে মোট ৩১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী পরিবেশ অধিদপ্তরের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রোজিনা আক্তার এই অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার সদর ইউনিয়নের বিবি ইটভাটার মালিক বোদা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান সফিউল্লাহ সুফিকে ছয় লাখ ও এমএমএল ইটভাটার মালিক ময়দানদীঘি কলেজের প্রভাষক আব্দুল মান্নানকে পাঁচ লাখ বেংহারি নগ্রাম ইউনিয়নের ডিওবি ভাটার মালিক দেলোয়ার হোসেন এবং এসআরবি ভাটার মালিক সাইফুল ইসলাম (মাস্টার) কে পাঁচ লাখ করে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় তাদের দুইটি ইটভাটাকে এস্কভেটর দ্বারা আংশিক গুঁড়িয়ে দেয়া হয়।

এছাড়া একই ইউনিয়নের এলআরবি ভাটার মালিক আব্দুর রহমান ও এসএসবি ভাটার মালিক শাহাদাত হোসেন প্রধানকে পাঁচ লাখ করে ১০ লাখ এবং টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় পরিবেশ অধিদপ্তরের রংপুর বিভাগের উপ-পরিচালক মেজবাবুল আলম, সহ-পরিচালক ফারুক হোসেন, নমুনা সংগ্রহকারী শাহিন আলম, র‌্যাব-১৩ নীলফামারী ব্যাটলিয়নের কোম্পানি কমান্ডার (সিনিয়র এএসপি) মুন্না বিশ্বাস সহ র‌্যাব সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোজিনা আক্তার জানান, ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৩ এর সংশোধিত আইন ২০১৯ অনুযায়ী ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় ৬টি ইটভাটাকে লাইসেন্স না থাকা, নতুন করে লাইসেন্স নবায়ন না করা, কৃষি জমি থেকে অবৈধভাবে মাটি এনে ইট তৈরি ও কৃষি জমিতে অবৈধভাবে ভাটা করে ইট পোড়ানোর কারণে এই জরিমানা করা হয়। এই অভিযান আগামীতেও অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।