প্রবাসদর্পণ ডেস্কঃ

ঢালিউড সুপার হিরো সালমান শাহ আত্মহত্যা করেছেন মর্মে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রতিবেদন গ্রহণ করে আদেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (৩১ অক্টোবর) সালমান শাহর মা নীলা চৌধুরীর পক্ষে তার আইনজীবী ফারুক আহাম্মদের করা নারাজি আবেদন খারিজ করে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশীদ এই আদেশ দেন। এর মাধ্যমে ২৫ বছর পর সালমান শাহ যে আত্মহত্যাই করেছেন, সেই প্রতিবেদন আদালতে গৃহীত হলো। এর আগে নারাজি আবেদনে মামলার বাদী সালমান শাহর মা নীলা চৌধুরীর জবানবন্দি ভার্চ্যুয়ালি রেকর্ডের অনুমতি চাওয়া হয়।

এছাড়া মামলায় এক আসামির ভিডিও রেকর্ডের কপি চেয়ে আরেকটি আবেদন করা হয়। আদালত সবকটি আবেদন খারিজ করে আদেশ দিয়েছেন বলে জানান লন্ডনে থাকা নীলা চৌধুরীর আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ।

এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাবেন কি না, সেটা এখন বাদীর সিদ্ধান্ত। ২০২০ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি পি‌বিআইয়ের চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা পড়ে।

ওই দিন সকালে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন মাজিস্ট্রেট আদালতের ডেসপাস শাখায় ৬০০ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর চিত্রনায়ক চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার (ইমন) ওরফে সালমান শাহ রহস্যজনকভাবে মারা যান। সেসময় এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছিলেন তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী।

ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে-এমন অভিযোগে ১৯৯৭ সালের ২৪ জুলাই অভিযোগটিকে হত্যা মামলায় রূপান্তর করার আবেদন জানান তিনি। একাধিক সংস্থা এটি আত্মহত্যা হিসেবে প্রতিবেদন দিলেও সালমান শাহর বাবার মৃত্যুর পর মা তাতে নারাজি দিয়েছেন।

এ দিকে সালমান শাহের মা নীলা চৌধুরী প্রবাস দর্পণকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আদালতের এই রায়ে সন্তুষ্ট নয় প্রয়োজনে তিনি উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন।